যখন আমার অনেক টাকা হবে,
 
তখন ইয়া বড় করে একটা বাথরুম বানাবো!
হাগা মত শৈল্পিক কাজ-কর্মকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার জন্যে এই বাথরুমে অনেক ডেকোরেটিং করবো! মার্ভেলের টাইলস লাগাবো,ঝাড়বাতি লাগাবো।
 
শান্তিতে হাগার উপর কিছু নাই।তাই এসি লাগাবো!ইয়া বড় দেখে।
জাপানের toto এর টয়লেট নাকি বিশ্বের সেরা। সুচু করতে হাত লাগবে না, টয়লেটই সুচায়া দিবে হাগার পর।আমার টয়লেটেও ওরকম অটোমেটিক সুচু করার ব্যবস্থা থাকবে!
 
হাগতে বসে গান টান ও শুনলেও মন্দ হয় না।রবীন্দ্রসংগীত বাজানো যায়।কিংবা অপেরা।
গানের একেক টানের সাথে ফিল নিয়ে হাগবো!
কাজেই উন্নত সাউন্ড সিস্টেম ও বসাবো,যাতে আরামে গান টান বাজানো যায়।
 
মুভি লাভার পোলাপাইনদের একটা সমস্যা হইলো, এরা মুভি-সিরিজ দেখার সময় হাগা আসলে অত্যন্ত বিরক্ত বোধ করে। আর আমি করি মহা বিরক্ত বোধ!
হাগার মত শৈল্পিক কাজকর্মের সময়েও যাতে মুভি-সিরিজ দেখা যায় এইজন্যে একটা প্রকান্ড সাইজের স্মার্ট টিভি ও লাগাবো!
এটা শুধু মুভি-সিরিজ দেখার সময়েই কাজে দিবে এমন না। আরো অনেক কাজে কাজে আসবে,
যেমন ধরেন কপালে যে মেয়েটা বউ হয়ে আসলো,সে যদি দজ্জাল টাইপের হয়, তাইলে ঝগড়া ঝাটি করে বাথরুমে বসে থাকবো। বসে বসে মুভি-সিরিজ দেখে দিন কাটিয়ে দিবো! দজ্জাল বইয়ের মাথা ঠান্ডা না হওয়া তক বের হবো না!
 
ইয়া একটা একটা বড় বাথটাব ও বসাবো। শুয়ে বসে গোসল করবো।পাশে প্লে গার্ল ম্যাগাজিনের দু চারটা বই রাখবো। এগুলা না রাখলে নাকি ফিল আসে না :3 কি আর করা।ফিল নিতে না পারলে এত বড় হাগাখানা বানানোর কোন মানেও হয় না।তাই দুই চারটা বোতল ও রাখবো। :3
 
ইয়া বড় শাওয়ার থাকবে।চালু করলে যেন মনে হবে বৃষ্টিতে ভিজতেছি! এরকম শাওয়ার লাগাবো। শাওয়ার নেওয়ার সময়ে চিল্লাই চিল্লাইবেসুরো হেঁড়ে গলায় মাহফুজুর রহমানের মত গান গাইবো।
আবার জগত,সমাজ সবাইরে মন ভরে গাইল্লানো যাবে মেজাজ গরম হইলে।
চাইলে বউরে ও গাইল্লাইতে পারি,আমার লাইফটাকে দোজখ বানিয়ে দেওয়ার জন্যে!(মানে বউ দজ্জাল হইলে আর কি।)
এইসব আওয়াজ যেন বাইরে না যায় তাই বাথরুমের দেয়ালে লাগাবো স্টাইরো ফোম! ভিতরের কোন আওয়াজ বাইরে যাবে না। বাইরেরটা ও ভিতরে আসবে না। একেবারে কুউল!
 
খালি যে সাউন্ড প্রুফ বানাবো তাও না। আলো প্রুফ বানাবো,বাথরুমের দরজা জানালা সব বুলেট প্রুফ,বোমা প্রুফ, এটম বোমা প্রুফ হাইড্রোজেন বোমা প্রুফ বানাবো।
বলা যায় না,বউ যদি দজ্জাল হয়,তখন আমার অত্যধিক বাথরুম প্রীতি দেখে হিংসা করে এটাকে উড়িয়ে দেওয়ার জন্যে পারমানবিক শক্তিধর দেশ গুলোর সাথে চুক্তি টুক্তি করে বসলেও বসতে পারে।
তাই কোন রিস্ক নেওয়া যাবে না। দরজা হবে ব্যাংক এর ভল্টের চেয়ে ও শক্তিশালী,পুরু!
আর সিকিউরিটি লক হিসেবে থাকবে আই সেন্সর ফিংগারপ্রিন্ট,পাছাপ্রিন্ট ফুটপ্রিন্ট,হেডপ্রিন্ট সহ আরো যা যা লাগে সব!
দরকারে একটা টিম রাখবো,যারা সিকিউরটি দেখা শোনা করবে!
আস্ত একটা আর্মি ও রাখা যায়। দরকারে কাজে লাগবে! যেমন ধরেন বোর হয়ে গেলে একটু গোলাগুলির আওয়াজ নিতে ফিল নিতে ইচ্ছা করবে,তখন কাজে লাগাবো।
এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম হিসেবে এন্টি ব্যালিস্টিক মিসাইল রাখবো। বাথরুমের ছাদে কামান ও রেখে দিবো!
 
বাথরুম বাইরে থেকে হবে দুর্গের মত! ভিতরে হবে স্বর্গের মত! গিনেস বুকে নাম উঠে যাবে। সবাই হিংসা করবে এমন একটা বাথরুমের মালিক হতে না পেরে!
 

বাথরুমের নামে ফেসবুক পেইজ থাকবে,টুইটারে ভেরিফাইয়েড একাউন্ট থাকবে তাতে লেডি গাগা,গিগি হাদিদ,সেলেনা গোমেজ, বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধান সহ দুনিয়ার তাবৎ হাই প্রোফাইল ঘেটুঁরা ফলোয়ার থাকবে!

 

ইউটিউব চ্যানেল থাকলে মিলিয়ন সাবস্ক্রাইভ সহ! তাতে মানুষ বাথরুম ট্যুরের ভিডিও দেখবে! 
 
মোটকথা ,হাগব আমি,আর সারাদুনিয়া এতিমের মত চেয়ে দেখবে আর জেলাস ফিল করবে! 
 
এই হইলো, আমার অনেক টাকা হইলে কি কি করুম তার একটা খন্ডাংশ! 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here